অন্তঃসত্ত্বা মাকে হত্যার পর পেট কেটে বের করে নিল বাচ্চা

৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক তরুণীকে হত্যা করে তার পেট কেটে বাচ্চাকে বের করে নেওয়া হয়েছে। নির্মম এই ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে। এ ঘটনায় দুই নারী ও এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, ভয়াবহ এই হত্যার শিকার ওই তরুণীর নাম মার্লিন ওকোয়া। তাকে অপহরণ করার পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। এরপর পেট কেটে বাচ্চাটিকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নিহত মার্লিন ওকোয়া শিকাগোর অল্টারনেটিভ হাই স্কুল থেকে বিকাল ৩টার দিকে নিজের মোটরসাইকেল নিয়ে একাই বের হন। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাচ্ছিল না তার পরিবার। অনেক খোঁজাখুঁজির পর বুধবার সেই তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তার বাড়ির সামনেই একটি ময়লার স্তূপ থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ বলছে, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট থেকে জানা যায়, শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এরপর পেট কেটে শিশুটিকে বের করা হয়।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন বাচ্চাটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা খুবই কম।

এ ঘটনায় ৪৬ বছর বয়সী ক্ল্যারিস্কা ফিগুয়েরো এবং ২৪ বছর বয়সী তার মেয়ে ডেসিরির বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ এনেছে পুলিশ। আর আটক করা হয়েছে ডেসিরির বয়ফ্রেন্ড পিটার বোবকে।

তরুণীর স্বামী ইয়োভানি লোপেজ বলেন, ‘আমাদের তিন বছরের ছেলে রয়েছে। আমার স্ত্রীর সঙ্গে কারো কোনো ধরনের ঝগড়া ছিল না। আমি এটা বিশ্বাস করতে পারছি না।’

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত ক্ল্যারিস্কার কাছ থেকে বাচ্চাদের জিনিসপত্র কিনতেন মারলেন। সেই থেকেই দুজনের মধ্যে পরিচয়। কিছু জিনিসপত্র নিতে ক্ল্যারিস্কার বাড়িতে গিয়েছিলেন মারলেন। সেখানেই তাকে খুন করা হয় বলে ধারনা করা হচ্ছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*